২২ মে, ২০১৭

AMP Blogger Template এর সুবিধা এবং অসুবিধা কি?

AMP Blogger Template এর সুবিধা এবং অসুবিধা কি?
4/ 5 stars - "AMP Blogger Template এর সুবিধা এবং অসুবিধা কি?" দীর্ঘ বিরতির পর সম্প্রতি সময়ের ওয়েব জগতে সাড়াজাগানো গুরুত্বপূর্ণ টপিক AMP এর সকল সুবিধা অসুবিধা’সহ টুকিটাকি বিষয় নিয়ে লিখতে বসলাম। অন-লাইন...
-
দীর্ঘ বিরতির পর সম্প্রতি সময়ের ওয়েব জগতে সাড়াজাগানো গুরুত্বপূর্ণ টপিক AMP এর সকল সুবিধা অসুবিধা’সহ টুকিটাকি বিষয় নিয়ে লিখতে বসলাম। অন-লাইনে আর্টিকেল শেয়ার করা ইচ্ছা থাকলেও কাজের অধিক ব্যস্ততার কারনে ব্লগে আর্টিকেল লিখা সম্ভব হয়ে উঠে না। আজকের এই টপিকটি বর্তমান সময়ে অন-লাইনে সাড়াজাগানো একটি বিষয়। এই টপিকটি নিয়ে লিখার জন্য বিগত এক বছরে প্রায় শ’খানিক ই-মেইল অনুরোধ আমার কাছে এসেছে। বেশীরভাগ লোকের প্রশ্ন ছিল AMP কি, এর সুবিধা কি, কিভাবে ব্যবহার করতে হয়, গুগল ব্লগার ব্লগে কি এটি ব্যবহার করা যাবে? আজ আপনাদের সকল প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার পাশাপাশি AMP নিয়ে আরো বিস্তারিত আলোচনা করব।
AMP Blogger Template এর সুবিধা এবং অসুবিধা কি?
আপনি কি আপনার ব্লগটিকে Accelerated Mobile Pages (AMP) করতে চান, কিংবা এ সম্পর্কে বিস্তারিত সুবিধা-অসুবিধা সম্পর্কে জানতে চান? তাহলে আমাদের আজকের এই পোস্টে বিস্তারিত জানতে পারবেন। তবে এ সম্পর্কে বিস্তারিত লিখার পূর্বে দু’টি বিষয় সম্পর্কে পরিষ্কারভাবে বলে রাখছি, বেশীরভাগ ভালমানের Website এখনো পর্যন্ত AMP ব্যবহার করছে না এবং আপনি অন-লাইনে যে সমস্ত Blogger Template এ AMP এর ব্যবহার দেখতে পান, আসলে সেগুলির কোনটিই পরিপূর্ণ AMP অপটিমাইজ নয়।

AMP কি?

AMP HTML হচ্ছে গুগল কোম্পানি সমর্থিত একটি Open Source Project, যা একটি ওয়েবসাইটের Content-কে যে কোন ধরনের মোবাইল ডিভাইসে দ্রুত লোড নিতে সাহায্য করে। আরো ভালভাবে বলা যায়, একটি মোবাইল ডিভাইসের মধ্যে AMP যে কোন ওয়েবসাইটকে একটি দ্রুতগামী বুলেটের’মত লোড নিতে সক্ষম। তবে এই সুবিধা নেওয়ার জন্য আপনার ব্লগে শুধুমাত্র Google AdSense ব্যতীত প্রায় সকল ধরনের বিজ্ঞাপন’সহ Third Party Scripts ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকতে হবে।

AMP এর সীমাবদ্ধতা (Restrictions)

  • শুধুমাত্র Asynchronous Scripts গ্রহন করে।
  • Third Party Scripts ব্যবহার করা যাবে না।
  • সব CSS In-line এ রাখা’সহ আকারে 50,000 bytes এর মধ্যে থাকতে হবে।
  • ফন্ট ট্রিগারিং অবশ্যই ভাল হতে হবে।
  • মিনিমাম Web Resource Loading করে।
  • সব Resource এর সাইজ Statically হয়ে থাকে।

Blogger Template কি AMP করা যাবে?

এই প্রশ্নের উত্তরে সংক্ষেপে বলা যায় যে, ব্লগার টেমপ্লেট আংশিকভাবে Accelerated Mobile Pages (AMP) করা যাবে। Blogger Team অফিসিয়ালভাবে এখনো পর্যন্ত কোন টেমপ্লেটে AMP ব্যবহার করছে না। কারণ Blogger Template Editor এ XHTML ভার্সনে বর্তমানে AMP HTML Tag সাপোর্ট করছে না। যারা বর্তমানে AMP Theme ব্যবহার করছে, তারা Google Blogspot এর নিয়ম ভেঙ্গ করে ব্যবহার করছে। যার দরুন ব্লগার টেমপ্লেটের অভ্যন্তরে থাকা অনেক মূল্যমান অপশন এর সুবিধা হারাচ্ছেন, যা একটি ব্লগকে দীর্ঘ দিন পরিচালনা করতে সমস্যায় ফেলবে। উদাহরনের মাধ্যমে বিষয়টি আরো পরিষ্কার করছি।

উদাহরণ- এ ধরনের Theme কে এভাবে বলা যায় যে, একটি R15 মোটর সাইকেলের ভীতরে Discover মোটর সাইকেলের ইঞ্জিন বসিয়ে দেওয়া। অর্থাৎ সাইকেলটি আপাত দৃষ্টিতে দেখতে R15 মনে হবে কিন্তু কার্যক্ষমতা বা ফিচার্স কোনভাবে সেই তুলনায় হবে না। একটি R15 সাইকেল যে Speed এ চলবে, এই গাড়ীটি সেই পরিমান Seed এ কোনভাবেই চলবে না। এটাকে অহেতুক সময় নষ্ট করা ছাড়া আর কিছুই বলা যায় না।

আপনি অবশ্যই Blogger Template কে AMP করতে পারবেন, কিন্তু ব্লগার Theme এর অনেক মূল্যমান Default Feature সহ ব্লগের সুন্দর্য হারাতে হবে। AMP ব্লগে টেমপ্লেট’সহ পোস্টের ভীতরে থাকা কোডগুলিকে Convert করে Ugly Flat Css/Html করার পাশাপাশি ব্লগের Third Party Fancy Jquary এবং JavaScript নষ্ট দেবে।

সাধারণত AMP কিছু Custom HTML Tag ব্যবহার করে। আর সেগুলি Template এর ভীতরে যুক্ত করলে টেমেপ্লেট AMP Validate হয়ে যায়। যখন ব্লগটি AMP Validate হয়ে যাবে, তখন Google Search Result এ আপনার ব্লগের পাশে একটি AMP আইকন শো করবে। এর ফলে আপনি পূর্বের চাইতে বেশী Traffic পাবেন কিন্তু অনেক ধরনের Feature হারাতে হবে।
AMP Blogger Template এর সুবিধা এবং অসুবিধা কি?

AMP and Responsive Template এর পার্থক্য

এ দু’টির মধ্যে পার্থক্য নিয়ে লিখার আগে সংক্ষেপে বলা দরকার যে, AMP হচ্ছে AMP=Responsive Template + Custom HTML ট্যাগ। আপনার ব্লগটিকে AMP করার পূর্বে অবশ্যই Mobile Responsive করে নিতে হবে। সে জন্য অবশ্যয় Responsive এর নিয়মানুসারে Css Media Quarries ও Break Points যুক্ত করে নিতে হবে। AMP হচ্ছে একটি Responsive Template কে Custom HTML ট্যাগ যুক্ত করে অপটিমাইজ করার উপায় মাত্র।

উদাহরণ হিসেবে বলা যায়- আপনি একটি বিয়ের অনুষ্ঠানে গেলেন। সেই অনুষ্ঠানে ইচ্ছামত খুরমা, পোলাও, মাংস ও বোরহানি খেলেন। পরিশেষে ঐ সবগুলি খাবারকে সহজে ডায়েট করার জন্য একটি Coca Cola  খেলেন। ঠিক তেমনি একটি Responsive Template এর সাথে কিছু অতিরিক্ত HTML Tag যুক্ত করে দ্রুত লোড নেওয়াটাই হচ্ছে AMP এর কাজ।

AMP Template কি Responsive Template এর চাইতে দ্রুত লোড নেয়?

এ কথা নিঃসন্দেহে সবাইকে স্বীকার করতে হবে যে, একটি Proper AMP অপটিমাইজ Template যে কোন ধরনের নরমাল Responsive Template এর চা্ইতে  দ্রুত লোড নেবে। তবে ওয়েব ডেভেলপার যদি সঠিকভাবে কোডিং করতে না পারেন, তাহলে সে ধরনের AMP Template একটি Responsive Template এর চাইতে দ্রুত লোড নিতে সক্ষম হবে না।

তাছাড়া Responsive Template ব্লগের Sidebar ও Footer লোড নেওয়ার পাশাপাশি সকল ধরনের Third Party Scripts গুলিও Load নেয়। একটি Responsive Theme হচ্ছে Desktop ভার্সনের পরিপূর্ণ Feature সম্বলিত Mobile ভার্সন। Responsive Template এর মাধ্যমে কম্পিউটার ভার্সনের পরিপূর্ণ সুবিধা নেওয়া যায়।

অন্যদিকে AMP Template 50,000 bytes এর অধিক সাইজের Style Sheet ব্যবহার করতে পারে না। অধিকন্তু আপনি এ ধরনের টেমপ্লেটে বিভিন্ন ধরনের Third Party Widgets যেমন Add-to-cart buttons ও Social Media Sharing Buttons সহ আরো অন্যান্য উইজেটস ব্যবহার করতে পারবেন না।

AMP Template এর সুবিধা

  1. AMP Template যে কোন Normal Theme এর চাইতে দ্রুত Load নেবে।
  2. ব্লগের Traffic বৃদ্ধি করতঃ Ranking বৃদ্ধি করবে।
  3. ব্লগের পেজ দ্রুত লোড হওয়ার দরুন Page View বৃদ্ধি পাবে।
  4. সংবাদ পত্রের ক্ষেত্রে AMP Template হচ্ছে Better Choice.

AMP Template এর অসুবিধা

  1. বিভিন্ন ধরনের বিজ্ঞাপন হতে আয়ের পরিমান হ্রাস পাবে।
  2. ব্লগের সাথে যুক্ত ডিফল্ট Scripts এবং Widgets ব্যবহার করতে পারবেন না। 
  3. ব্লগের ডিফল্ট Comment Form টি ব্যবহার করা যাবে না।
  4. Iframe 600px এর অধিক হলে লোড নেবে না।
  5. ব্লগপোষ্টে অভ্যন্তরের সকল <img> ট্যাগ এর পরিবর্তে <amp-img> ট্যাগ ব্যবহার করতে হবে। আপনার ব্লগে পোষ্টের পরিমান বেশী হয়ে থাকলে এটি অনেক সময় সাপেক্ষ একটি বিষয়।
  6. ব্লগের সাইডবারে কোন উইজেট ব্যবহার করতে পারবেন না। কারণ ব্লগের সাইডবারটি Google এর Scripts এর মাধ্যমে লোড নেয়, সেহেতু আপনি সাইডবারে কোন Widgets যুক্ত করতে পারবেন না।
  7. Add-to-Cart button যুক্ত করা যাবে না।
  8. পোস্টের ভীতরের Embedded Videos ও Audios গুলির সাইজ পরিবর্তন করতে হবে। অন্যথায় এগুলিও ব্যবহার করা সম্ভব হবে না।
  9. Email Subscription Form ব্যবহার করা যাবে না। কারণ onclick, action, onsubmit, onfocus, onblur attributes গুলি AMP Allowed করে না।
  10. শুধুমাত্র Google AdSense ব্যতীত অন্য কোন ধরনের বিজ্ঞাপন সাপোর্ট করে না।
  11. টেমপ্লেটের শুরুতে <xmlns> attribute দিয়ে শুরু করা হয়। যার ফলে ওয়েব ব্রাউজারগুলি সহজে টেমপ্লেটের ভাষা বুঝতে পারে। কিন্তু AMP এর ক্ষেত্রে amp="amp" attribution দিয়ে শুরু করা হয়। যা w3.org এর Validate না হওয়াতে অনেক সময় পেজ লোড নিতে সমস্যা হবে।

AMP সম্পর্কে আমাদের পরামর্শ

সত্য কথা বলতে AMP সব ধরনের ব্লগ/ওয়েবসাইটের জন্য Perfect Choice নয়। বিশ্ব বিখ্যাত ব্লগ Washington Post, CNN, The Wall Street Journal, Hearst, The Guardian ও The New York Times সহ বেশ কিছু ওয়েবসাইট বিগত প্রায় এক বৎসর AMP ব্যবহার করতে দেখা গিয়েছিল, কিন্তু সম্প্রতি এই জনপ্রিয় ওয়েবসাইটগুলি AMP অপশন Remove করে দিয়েছে। আপনি যে কোন ধরনের মোবাইল থেকে Google এ সার্চ করলে এর সত্যতা যাচাই করতে পারবেন।

AMP আপনার ব্লগের Speed অনেকাংশেই বৃদ্ধি করবে কিন্তু আপনি ইচ্ছে করলে এ ধরনের টেমপ্লেটে সকল ধরনের বিজ্ঞাপন ব্যবহার করতে পারবেন না। যার ফলশ্রুতিতে আপনার ব্লগের আয়ের পরিমান অনেকাংশেই কমে যাবে। তাছাড়া অধিকাংশ ভালমানের ব্লগাররা AMP ব্যবহার করে ব্লগের আয়ের পরিমান বৃদ্ধি করার ব্যাপারে কোন সাপোর্ট পাননি মর্মে মন্তব্য করেন। তাছাড়াও AMP ওয়েবসাইটের বিজ্ঞাপন মূল্য যে কোন Responsive টেমপ্লেট এর চাইতে কম বলে অনেকে মন্তব্য করেছেন।

ব্লগার প্লাটফর্মের ক্ষেত্রে এখনো পর্যন্ত AMP বেটার অপশন নয়। কারণ এই অপশনের জন্য গুগল এখনো কোন ধরনের অফিসিয়াল সাপোর্ট দিচ্ছে না। সে জন্য আপনি একটি Blogger Template কে কোনভাবে পরিপূর্ণ AMP ভার্সনের রূপান্তর করতে পারবেন না। আমি আপনাদের বলব- ব্লগার টিম যতক্ষণ পর্যন্ত অফিসালভাবে AMP সাপোর্ট না করছে তথক্ষণ পর্যন্ত ব্লগে AMP ব্যবহার না করার পরামর্শ দিচ্ছি। যখন ব্লগার টিম অফিসিয়ালভাবে সাপোর্ট দেবে তখন তারা একটি Template-কে কিভাবে পরিপূর্ণ AMP উপযোগী করতে হবে তাও বিস্তারিত বলে দেবে।

উল্লেখ্য যে, প্রযুক্তি ডট কম এখনো পর্যন্ত AMP ব্যবহার করছে না এবং যতক্ষণ পর্যন্ত অফিসিয়ালভাবে সাপোর্ট না দেবে, ততক্ষণ পর্যন্ত আমরা AMP ব্যবহার করব না। অফিসিয়ালভাবে সাপোর্ট করার পর আমরা এ বিষয়ে টিপস শেয়ার করব।

মতামতঃ সবশেষে সংক্ষেপে একটি কথাই বলব, ব্লগার ইউজাররা আপাতত AMP ব্যবহার করবেন না। তারপরও চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত আপনার একান্ত নিজের উপর নির্ভর করবে। আপনারা যদি ইতোপূর্বে আপনাদের ব্লগে কেউ AMP ব্যবহার করে থাকেন, তাহলে আপনার মতামত সম্পর্কে আমাদের জানাতে পারেন। আমাদের আর্টিকেলের সাথে আপনার অভীজ্ঞতার মিল বা অমিলগুলিও কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে পারেন। আমরা প্রতি উত্তরের মাধ্যমে আপনার ধারনা আরো পরিষ্কার করব, ইনশাআল্লাহ্।
Subcribe to our all updates

and Share on
পূর্ববর্তী পোষ্ট
পরবর্তী পোষ্ট

16 টি মন্তব্য: Post Yours! Read Comment Policy ▼
লক্ষ্য করুনঃ
পোষ্টের সাথে সম্পৃক্ত নয় এমন কোন কমেন্ট করা যাবে না। কোন কারণ ব্যতীত আপনার ব্লগের লিংক শেয়ার করতে যাবেন না। সবসময় গঠনমূলক মন্তব্য প্রদানের চেষ্টা করবেন। আমরা সবার মতামত সমানভাবে মূল্যায়ন করি এবং যথাসময়ে প্রতি উত্তর দেয়ার চেষ্টা করি।

  1. রশিদ ভাই, AMP সম্পর্কে এত বিস্তারিত লেখার জন্য আপনাকে অনেক ধন্যবাদ । অনেক দিন অপেক্ষায় ছিলাম আপনার একটা নতুন পোস্টের জন্য :)

    উত্তরমুছুন
    উত্তরগুলি
    1. আমাদের সাথে আছেন জেনে খুবই খুশি হলাম। আসলে আমরা সবসময় ভাল কিছু শেয়ার করার চেষ্টা করি, কিন্তু কাজ নিয়ে এত ব্যস্ততার মধ্যে আছি, যার ফলে কোনভাবেই ব্লগে লিখতে পারছি না।

      মুছুন
  2. আপনি আরো এগিয়ে যাবেন, ইনশাআল্লাহ

    উত্তরমুছুন
  3. অনেক ধন্যবাদ রশিদ ভাই...

    উত্তরমুছুন
    উত্তরগুলি
    1. ধন্যবাদ, আমাদের সাথে থাকুন।

      মুছুন
  4. জানতে পারলাম। আগে জানা ছিল না।

    উত্তরমুছুন
    উত্তরগুলি
    1. অনেক দিন পর আপনাকে আমাদের ব্লগে দেখে ভাল লাগল। আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ...

      মুছুন
  5. ভাই আমি ব্লগারে আলাদা আলাদা মেনু তৈরি করবো কি ভাবে? প্লীজ শিখতে চাই

    উত্তরমুছুন
    উত্তরগুলি
    1. আমার ব্লগে এ সংক্রান্তে দুটি পোস্ট রয়েছে। আপনি ইচ্ছে করলে সেখান থেকে বিস্তারিত জানতে পারবেন।

      মুছুন
  6. দৈনিক ২০০ টাকা মোবাইল রির্চাজ করুন ।
    ১০০%সত্যি বিশ্বাস না হলে ring id ফেসবুক পেজে দেখেন
    বিস্তারিত
    Ring id account খুললেই ৩০ টাকা।কোন Email দরকার নেই। তো চলুন শুরু করা যাক।
    রেফারেল কোড 12029770 *প্রথমে প্লে স্টোর থেকে Ring id ডাউনলোড করুন
    *এরপর অ‍্যাপটি চালু করুন
    *New account এ চাপ দিন
    *এরপরে ০ ছাড়া মোবাইল নাম্বার দিন।
    *নম্বর দেওয়ার পর আপনার মোবাইল এ smsআসবে
    *এরপর নাম, পাসওয়ার্ড দিন।
    ***সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কথা হলো রেফারেল কোড 12029770 দিলেটাকা পাবেন।
    *আপনার রেফারেল কোড দিয়ে কেউ খুললেই সে পাবে ৩০ টাকা আর আপনি পাবেন ১০ টাকা
    * এভাবে ১০০ টাকা হলে আপনি সঙ্গেই রিচার্জ নিতে পারবেন।
    *আপনার রেফারেলের টাকা আস্তে আস্তে যুক্ত হবে।
    * এভাবে যত জনকে রেফার করেন প্রতেকের কাজ থেকে আপনি ১০ টাকা করে পাবেন।
    এটি একটি বাংলাদেশী apps
    এর মাধ্যমে live video chat করা যায়,,,,
    এই apps টি অনেক সুন্দর প্রেমেন্ট দিচ্ছে,,,
    তাই দেরি না করে এখনি apps টা তে কাজ শুরু করুন,,,
    আর মোবাইল রির্চাজ নিতে থাকুন যত খুশি তত,,,
    তাড়াতাড়ি করুন সময় সীমিত,,,,

    উত্তরমুছুন
  7. দাদা ফেসবুকে ইন্সটেন্ট আর্টিক্যাল নিয়ে পোষ্ট করুন। ব্লগের সাথে কিভাবে যুক্তু করব।

    যুক্ত করার পর, পাব্লিকেসান আর্টিক্যাল ক্রিয়েট করব কিভাবে, একটি সহজ কোড দিন দয়াকরে।

    আর একটা অনুরোধ, ব্লগ থেকে ওয়াডপ্রেস এ কনভার্ট করার প্রকিয়াটি জানাবেন। ধন্যবাদ

    উত্তরমুছুন
    উত্তরগুলি
    1. আমাদের ব্লগে চোখ রাখুন, খুব শীঘ্রই এ সংক্রান্তে একটি পোস্ট পেয়ে যাবেন।

      মুছুন
  8. ভাই আপনার এই ব্লগের টেম্পলেট এর নাম কি? টেম্পেলেট টা দেয়া যাবে??

    উত্তরমুছুন
    উত্তরগুলি
    1. এটা আমার পার্সনাল ব্লগ। আমি নিজে কাস্টমাইজ করে তৈরি করেছি। কাজেই দেওয়ার কোন প্রশ্নই আসে না।

      মুছুন

 
Subscribe for all Updates

Subscribe Now

কপিরাইট © 2015- প্রযুক্তি ডট কম ™, সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত

Powered by: